crimefocus71.com

বিধ্বংসী ব্যাটিংয়ে মুমিনুলের ক্যারিয়ার সেরা রান 

(Last Updated On: April 26, 2017)

 স্পোর্টস ডেস্কঃ দুই বছরের বেশি সময় ধরে ওয়ানডে দলে উপেক্ষিত মুমিনুল হক খেলেছেন ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস। চোখ জুড়ানো ব্যাটিংয়ে প্রাইম দোলেশ্বরের বিপক্ষে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সকে এনে দিয়েছেন দারুণ এক জয়। ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে টানা চতুর্থ জয় পেয়েছে গাজী গ্রুপ। ৩৫ রানের জয়ে অলরাউন্ড নৈপুণ্যে উজ্জ্বল অধিনায়ক নাসির হোসেন। বিকেএসপির তিন নম্বরে মাঠে গতকাল বুধবার টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৪৮ ওভার ২ বলে ৩০৭ রানে অলআউট হয়ে যায় গাজী। জবাবে ৯ উইকেটে ২৭২ রানে থামে দোলেশ্বর। ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারির পর থেকে দেশের হয়ে ওয়ানডেতে খেলা হয়নি মুমিনুলের। তার আগের বছর থেকে উপেক্ষিত টি-টোয়েন্টিতে। লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের আগের সেরা ১২৯ ছাড়িয়ে এবার খেলেছেন ১৫২ রানের ইনিংস। উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান এনামুল হকের বিদায়ে দ্বিতীয় ওভারেই ক্রিজে আসতে হয় মুমিনুলকে। পঞ্চম ওভারে ফিরে যান আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান জহুরুল ইসলাম। ৯ রানের মধ্যে নেই ২ উইকেট। ছন্দে থাকা নাসিরের সঙ্গে ১৫৩ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন মুমিনুল। ২৪.১ ওভার স্থায়ী জুটিতে নাসিরের অবদান ৭৬ বলে ৬৪ রান। পাশের মাঠে খেলা ছিল লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ ও কলাবাগান ক্রীড়া চক্রের। মাঠ ভেজা থাকায় তখনও তাদের খেলা শুরু হয়নি। মুশফিকুর রহিম, তুষার ইমরান, হ্যামিল্টন মাসাকাদজারা বসে উপভোগ করছিলেন মুমিনুলের ব্যাটিং। ৫৪ বলে অর্ধশতক করা মুমিনুল লিস্ট ‘এ’ ক্রিকেটে নিজের তৃতীয় শতকে পৌঁছান ৮৯ বলে। বাঁহাতি ব্যাটসম্যান তিন অঙ্কে যাওয়ায় তার দলের চেয়ে মুশফিক-তুষারদের আনন্দই যেন ছিল বেশি। তাদের দাবিটা ছিল আরও বড়, মুমিনুলের কাছে চাইছিলেন দুইশ রানের ইনিংস! শতকের পর আরও চড়াও হন মুমিনুল। দ্রুত পৌঁছে যান দেড়শ রানে। তার তৃতীয় অর্ধশতক আসে মাত্র ২৮ বলে। চতুর্থ উইকেটে পারভেজ রসুলের সঙ্গে ১২.৪ ওভারে উপহার দেন ১০১ রানের বিধ্বংসী এক জুটি। গাজীর নজর তখন সাড়ে তিনশ’ রানে। শেষের দিকে চারের চেয়ে ছক্কা হাঁকানোর দিকেই বেশি মনোযোগ ছিল ম্যাচ সেরা মুমিনুলের। ফিরেন সেই ছক্কা হাঁকানোর চেষ্টাতেই। ফরহাদ রেজাকে স্লগ করতে গিয়ে ক্যাচ দেন ডিপ মিডউইকেটে। সব মিলিয়ে ১২০ বলের অসাধারণ ইনিংসটি গড়া ১৬টি চার ও ৬টি ছক্কায়। দলকে তিনশ রানের কাছাকাছি নিয়ে ফিরেন ভারতীয় অলরাউন্ডার রসুল। ৫৪ বলে ৫৩ রান করতে হাঁকান তিনটি ছক্কা। গাজীর প্রথম পাঁচ ব্যাটসম্যান ছাড়া আর কারোর এর আগে ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগ মেলেনি। এবার তাদের সামনে সুযোগ ছিল দলকে কিছু দেওয়ার। মেহেদী হাসান ছাড়া তাদের কেউ তা করতে পারেননি। শেষ ছয় ব্যাটসম্যানের মধ্যে দুই অঙ্কে যান কেবল মেহেদী (১৫ বলে ২২*)। শূন্য রানে ফিরেন সোহরাওয়ার্দী শুভ, আবু হায়দার। ১ রান করে ফিরেন নাদিফ চৌধুরী, আলাউদ্দিন বাবু ও শফিউল ইসলাম। ৪১ রানে ৪ উইকেট নিয়ে দোলেশ্বরের সেরা বোলার ফরহাদ। দেলোয়ার হোসেন ৩ উইকেট নেন ৩৯ রানে। বড় লক্ষ্য তাড়ায় ইমতিয়াজ হোসেনের ৪২ আর শাহরিয়ার নাফীসের ৩৬ রানের পরও ৯৮ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ভীষণ চাপে পড়ে দোলেশ্বর। জাকের আলীর সঙ্গে ১০৩ রানের জুটিতে প্রতিরোধ গড়েন সামিউল্লাহ সেনওয়ারি। দ্রুত রান তোলা এই জুটি ভাঙেন পেসার শফিউল ইসলাম। ৫৯ বলে ৫২ রান করা জাকেরকে বিদায় করে ম্যাচ নিজেদের মুঠোয় নিয়ে আসেন এই পেসার। আফগান অলরাউন্ডার সামিউল্লাহও (৫৫) এরপর বেশিক্ষণ টিকেননি। আবু হায়দারকে উড়ানোর চেষ্টায় তালুবন্দি হন নাদিফ চৌধুরীর। শেষের দিকে এনামুল হক ও আরাফাত সানির দৃঢ়তায় পরাজয়ের ব্যবধান কমায় দোলেশ্বর। ৪০ রানে ৩ উইকেট নিয়ে গাজীর সেরা বোলার নাসির। শফিউল ২ উইকেট নেন ৫১ রানে।
সংক্ষিপ্ত স্কোর:
গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স: ৪৮.২ ওভারে ৩০৭ (এনামুল ৩, জহুরুল ২, মুমিনুল ১৫২, নাসির ৬৪, রসুল ৫৩, নাদিফ ১, আলাউদ্দিন ১, শুভ ০, মেহেদী ২২*, হায়দার ০, শফিউল ১; দেলোয়ার ৩/৩৯, রেজা ৪/৪১, এনামুল হক ১/৬৮, সানি ১/৬৪, সামিউল্লাহ ০/২৬, শরিফউল্লাহ ০/৬৬)
প্রাইম দোলেশ্বর: ৫০ ওভারে ২৭২/৯ (ইমতিয়াজ ৪২, মজিদ ০, শাহরিয়ার ৩৬, মার্শাল ১০, শরিফউল্লাহ ৬, সামিউল্লাহ ৫৫, জাকের ৫২, রেজা ৮, এনামুল হক ৩০, সানি ২৯*, দেলোয়ার ১; শফিউল ২/৫১, আলাউদ্দিন ০/২১, মেহেদী ০/৩০, নাসির ৩/৪০, হায়দার ১/৩৯, রসুল ১/৫০, শুভ ১/৪১)
ফল: গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স ৩৫ রানে জয়ী
ম্যান অব দ্য ম্যাচ: মুমিনুল হক

93 total views, 1 views today

About crimef71

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

x

Check Also

এক নজরে দেখে নিন ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষার রুটিন-২০১৭

(Last Updated On: April 28, 2017) ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ুয়া ছাত্রছাত্রীদের পরীক্ষার রুটিন পেতে নিচের লিংকে ক্লিক করুন। https://goo.gl/DxDUvu 14,069 total views, ...

Translate »